কবিরাজি চিকিৎসায় ‘পুরুষত্ব’ হারিয়ে বাবাকে হত্যা করে ছেলে!

বাবার কবিরাজি চিকিৎসার কারণে যৌন ক্ষমতা (পুরুষত্ব) হারিয়েছেন ছেলে। এমন ক্ষোভ থেকেই নিজের বাবাকে খুন করেছিলেন লালমনিরহাটের কালিগঞ্জের জাহাঙ্গীর আলম। চার বছরের দীর্ঘ তদন্ত শেষে অবশেষে এই ক্লুলেস হত্যা মামলাটির রহস্য উদঘাটন করে খুনিকে

গ্রেফতার করে স্বীকারোক্তি আদায় করেছে জেলা অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। বৃহস্পতিবার (২ জুন) জেলা লালমনিরহাট সিআইডি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে লালমনিরহাট জেলা (সিআইডির) অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার মো. ইসমাইল বলেন, ২০১৮ সালের ৩১ জুলাই কালিগঞ্জের অচিনতলা এলাকায় গভীর রাতে নিজ শয়নকক্ষে খুন হন গোলাম হোসেন। তাকে ঘুমন্ত

অবস্থায় গলায়, কাঁধে, ঘাড়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। তার বড় ছেলের দায়ের করা মামলায় তদন্ত কাজ শুরু করলেও কোনো রহস্য খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। দীর্ঘ চার বছরে ছয়জন তদন্তকারী কর্মকর্তা ক্লুলেস মামলাটির রহস্য উদ্ঘাটন করতে পারেননি। চলতি বছরের মার্চ মাসে ৭ম তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব নেন সিআইডির উপ-পরিদর্শক (এসআই) জায়েদুল ইসলাম জাহিদ। দায়িত্ব নিয়ে এ মামলার সন্দিগ্ধ

আসামি গোলাম হোসেনের দ্বিতীয় পুত্র জাহাঙ্গীর আলমকে গত ১০ এপ্রিল আটক করে আদালতে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করলে সুকৌশলে জিজ্ঞাসাবাদে তার পিতাকে হত্যার কথা স্বীকার করেন।

About admin

Check Also

মেয়ের সঙ্গে ঈদ করা হলো না বাবার

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আবু জাহের। দীর্ঘ চার বছর পর বিদেশ থেকে দেশের মাটিতে ফিরেছেন। দেশে …