নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে পদ্মা সেতু পার হচ্ছে মোটরসাইকেল

বহুল প্রতিক্ষীত স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে আজ সকাল ছয়টা থেকে চলতে দেয়া হচ্ছে না মোটরসাইকেল। এমনকি সেতুতে হাটতে দেয়াও হচ্ছে না। শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন করা হয়েছে হাইওয়ে পুলিশ। নিষেধাজ্ঞা সত্বেও মোটরসাইকেল পদ্মা সেতু পার হচ্ছে। তবে মোটরসাইকেল চালিয়ে নয়। পিকআপে তুলে নিয়ে! সোমবার (২৭ জুন) সকালে দেখা যায়, পিকআপ ভাড়া করে তাতে মোটরসাইকেল তুলে নিয়ে কয়েকজন চালক পদ্মা সেতু পার হচ্ছেন।

তাদের এমন কাণ্ডের কথা জানতে চাইলে এক বাইক চালক বলেন, সেতুর ওপারে কাজ আছে। এখন সরকার তো সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষেধ করেছে। কিন্তু আমাদেরতো ওপারে যেতে হবে। এ কারণে পিকআপে করে এই কায়দায় পার হচ্ছি। পিকভাড়া কত করে নিচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রতি মোটরসাইকেল ৪০০ টাকা করে ভাড়া দিতে হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার (২৫ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেন। এরপর দিন রবিবার থেকে জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয় স্বপ্নের পদ্মা সেতু। এরপর অনেকে পদ্মা সেতু দেখতে যাচ্ছেন। কেউ কেউ নির্দেশনা অমান্য করে গাড়ি থেকে নেমে সেতুতে ছবি তোলেন। যানবাহনের বড় অংশ ছিলো মোটরসাইকেল।

এরইমধ্যে গতকাল সেতুর মাওয়া প্রান্তে গতকাল সন্ধ্যায় একটি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা হয়। দুর্ঘটনায় আহত দুজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনার পরপরই পদ্মা সেতুতে সোমবার (২৭ জুন) ভোর ৬টা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সেতু বিভাগ। সংশ্লিষ্ট এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সেতুতে অর্নিদিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে মোটরসাইকেল চলাচল।

চলছে না মোটরসাইকেল, পাল্টে গেছে সেতুর চিত্র বহুল প্রতিক্ষীত স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে আজ সকাল ছয়টা থেকে চলতে দেয়া হচ্ছে না মোটরসাইকেল। এমনকি সেতুতে হাটতে দেয়াও হচ্ছে না। শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন করা হয়েছে হাইওয়ে পুলিশ। এদিকে মোটরসাইকেল না চলার কারণে বদলে গেছে সেতুর মাওয়া প্রান্তের টোল প্লাজার চিত্র। কোনো জ্যাম নেই সেখানে।

পদ্মা সেতু জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়ার প্রথম দিনেই মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুইজন মারা যাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পরপরই পদ্মা সেতুতে অনির্দিষ্টকালের জন্য মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সেতু বিভাগ। সংশ্লিষ্ট এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সেতুতে অর্নিদিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে মোটরসাইকেল চলাচল।

এছাড়া গতকাল সেতু চালুর প্রথম দিনে দর্শনার্থী ও যাত্রীদের মধ্যে দেখা গেছে নিয়ম ভাঙার হিড়িক। সেতু কর্তৃপক্ষের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও অনেককেই মাঝ সেতুতে গাড়ি থামিয়ে ছবি তুলতে দেখা গেছে। দেখা গেছে সোশ্যালমিডিয়ার জন্য ভিডিও বানাতেও। উল্লেখ্য গত শনিবার (২৫ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেন। এরপর দিন রবিবার থেকে জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয় স্বপ্নের পদ্মা সেতু।

পদ্মা সেতুতে ২৪ ঘণ্টায় টোল আদায় ২ কোটি ৯ লাখ টাকা শনিবার উদ্বোধনের পর জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে পদ্মা সেতু। রবিবার (২৬ জুন) সকাল থেকেই শুরু হয়েছে সব ধরনের যান চলাচল। এদিন গত ২৪ ঘণ্টায় ৫১ হাজার ৩১৬ টি গাড়ি চলাচল করেছে। এই সময়ে সেতুর দুই প্রান্তে (মাওয়া ও জাজিরা) মোট টোল আদায় হয়েছে দুই কোটি ৯ লাখ ৪০ হাজার ৩০০ টাকা। আজ সোমবার (২৭ জুন) সকালে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবুল হোসেন গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান।

তিনি আরও জানান, মাওয়া প্রান্ত দিয়ে সেতু পার হয়েছে ২৬ হাজার ৫৮৯টি গাড়ি এবং টোল আদায় হয়েছে এক কোটি ৮ লাখ ৯৫ হাজার ৯০০ টাকা। একই সময়ে জাজিরা প্রান্ত দিয়ে সেতু পার হয়েছে ২৪ হাজার ৭২৭টি গাড়ি এবং টোল আদায় হয়েছে এক কোটি চার লাখ ৪ হাজার ৪০০ টাকা।

এর আগে শনিবার (২৫ জুন) মুন্সিগঞ্জের মাওয়ায় ১২টায় এক বণার্ঢ্য অনুষ্ঠানে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । অনুষ্ঠানে বিদেশি কূটনীতিকসহ হাজার হাজার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধন শেষে প্রধানমন্ত্রী টোলপ্লাজায় প্রথম টোল দেন এবং তার গাড়িবহর নিয়ে পদ্মা সেতু পাড়ি দেন।

তবে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত আজ সকাল ৬টা থেকে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ থাকবে। পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পরদিন রবিবার সরকারের এক তথ্য বিবরণীতে এই সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, ৬.১৫০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য এবং ১৮.১০ মিটার প্রস্থ পরিকল্পনায় নির্মিত হয়েছে স্বপ্নের এ সেতু। খরস্রোতা পদ্মা নদীর ওপর ৩০ হাজার ১৯৩ কোটি টাকা নিজস্ব অর্থায়নে ২০১৪ সালে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

পদ্মা সেতু চালুর প্রথম দিনেই কমে গেছে লঞ্চযাত্রী সর্বসাধারনের জন্য রবিবার (২৬ জুন) খুলে দেয়া হয় পদ্মা সেতু দিয়ে যান চলাচল। আর সেতু চালুর পথম দিনেই এর প্রভাব পড়েছে বরিশাল-ঢাকা নৌপথে চলাচলকারী যাত্রীবাহী লঞ্চে। রবিবার রাতে যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে বরিশাল নৌবন্দর ত্যাগ করা লঞ্চের বেশিরভাগ লঞ্চেই কেবিন খালি ছিল। ডেকের যাত্রীও কম ছিল বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এ্যাডভেঞ্চর-১ লঞ্চের ম্যানেজার হুমায়ুন কবির বলেন, আমাদের লঞ্চের ডাবল কেবিন রয়েছে ৫৫টি। যার মধ্যে আটটি ভাড়া হয়েছে, বাকিগুলো খালি ছিল। সিঙ্গেল ৫৫টির মধ্যে বেশিরভাগ খালি ছিল। ভিআইপি চারটি কেবিনের মধ্যে একটি এবং সেমি-ভিআইপি পাঁচটির মধ্যে একটি ভাড়া হয়েছে, বাকিগুলো খালি ছিল। ডেকের যাত্রী তেমন ছিল না। তিনি বলেন, পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় কেউ দেখার জন্য গেছেন, কেউ কেউ সড়কপথে গন্তব্যে গেছেন। এ জন্য যাত্রী সংকট ছিল। তবে এ সমস্যা বেশিদিন থাকবে বলে মনে হয় না।

সুন্দরবন-১১ লঞ্চের সুপারভাইজার বলেন, আমাদের ৩২টি ডাবল কেবিনের সব ভাড়া হয়েছে। সিঙ্গেল ৬১টি কেবিনের মধ্যে খালি ছিল চারটি, ভিআইপি ছয়টি ও সেমি-ভিআইপি পাঁচটি ভাড়া হয়েছে। ৪৪টি সোফার মধ্যে চারটি খালি ছিল। তবে ডেকের যাত্রী প্রতিদিনের চেয়ে কম ছিল। পদ্মা সেতু চালুর কারণে কিছুটা প্রভাব পড়েছে।

এ ব্যাপারে লঞ্চ মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সুন্দরবন নেভিগেশনের চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু গণমাধ্যমকে বলেন, পদ্মা সেতু নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। এ কারণে কিছুটা প্রভাব পড়েছে। তবে তা বেশিদিন স্থায়ী হবে না। লঞ্চের যাতায়াত নিরাপদ ও আরামদায়ক হওয়ায় লঞ্চের প্রতি মানুষের আগ্রহ ছিল এবং থাকবে। তাছাড়া সড়কের চেয়ে নদীপথে পণ্য পরিবহন ব্যয় অর্ধেক হওয়ায় স্বাভাবিক দিনগুলোর মতই পণ্য পেয়েছি। যাত্রীদের যাতায়াত নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করতে নদীপথ সচল রাখতে হবে।

উল্লেখ্য, শনিবার (২৫ জুন) ১১টা ৫০ মিনিট, বর্ণিল আয়োজনে মাওয়া প্রান্তের ফলক ও মূরাল উন্মোচন করে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বহুল প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতুর উদ্বোধন হয়েছে। রবিবার (২৬ জুন) ভোর সকাল ৬টায় শুরু এ সেতুতে ওপর দিয়ে যান চলাচল শুরু হয়। নির্ধারিত টোল দিয়ে থ্রি হুইলার ছাড়া যে কোনো গাড়ি পার হতে পারবে পদ্মা সেতু। এ সেতু নিয়ে মানুষের ব্যাপক আগ্রহ থাকায় যান চলাচল শুরুর দিনে অনেক ভিড় হয়। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষও যথাযথ প্রস্তুতি ছিল।

About admin

আমার পোস্ট নিয়ে কোন প্রকার প্রশ্ন বা মতামত থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন অথরা মেইল করতে পারেন admin@sottotv.com এই ঠিকানায়।