বাড়িতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল ৯ জনের মরদেহ

ভারতের মহরাষ্ট্রের সাংলি জেলার একটি গ্রামে দুই ভাইয়ের একটি পরিবারের নয়জন সদস্যকে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে, প্রাথমিকভাবে এই ঘটনাকে পুলিশ আত্মহত্যা বলে ধারণা করছে। তবে এ ঘটনাকে ঘিরে ওই গ্রামে বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

মহরাষ্ট্রের রাজধানী মুম্বাই থেকে প্রায় ৩৫০ কিলোমিটার দূরে পশ্চিম মহারাষ্ট্র জেলার মহিসাল গ্রামে দেড় কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ভাইদের দুটি ভিন্ন বাড়িতে মৃতদেহগুলি পাওয়া গেছে। ঘরের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল মরদেহ। কোথাও তিনটি, কোথাও দুটি। এভাবেই ঘরের বিভিন্ন জায়গায় পড়ে রয়েছে মোট ৯টি মরদেহ।

পুলিশ জানিয়েছে যে নিহতদের মধ্যে রয়েছে দুই ভাই, পোপাট ইয়ালাপ্পা ভানমোর (৫২), সঙ্গীতা পোপাট ভানমোর (৪৮), অর্চনা পোপাট ভানমোর (৩০), সুভম পোপাট ভানমোর (২৮), মানিক ইয়ালাপ্পা ভানমোর (৪৯), রেখা মানিক ভানমোর (৪৫), আদিত্য মানিক ভানমোর (১৫), অনিতা মানিক ভানমোর (২৮) ও আক্কাটাই মানিক ভানমোর (৭২)।

ইন্সপেক্টর মনোজকুমার লোহিয়া বলেন, পুলিশ উভয় স্থান থেকে সুইসাইড নোট পেয়েছে এবং তারা সেগুলো বিশ্লেষণ করছে। নোটগুলির বিষয়বস্তু থেকে বোঝা যায় যে তাদের প্রচুর ঋণ ছিল। তবে, আমরা সব দিক থেকে মামলাটি তদন্ত করছি।

তিনি জানান, পপট ভ্যানমোরের মৃত মেয়ে একটি ব্যাংকে চাকরি করতেন। কীভাবে ঘটনাটি প্রকাশ্যে এল জানতে চাইলে, আইপিএস অফিসার বলেন, গ্রামের একটি মেয়ে মানিক ভ্যানমোরের বাড়িতে গিয়েছিলেন প্রতিদিনের রুটিনের মতো কেনো কেউ তাদের কাছ থেকে দুধ আনতে আসেনি সেটি জানতে, পরে সে ওই বাড়িতে গিয়ে মৃতদেহগুলো দেখতে পায়।

তিনি বলেন, প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী পরিবারের সদস্যরা একটি বিষাক্ত পদার্থ খেয়েছিল, তবে বিস্তারিত তদন্ত ও ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলেই মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। সুত্র: দ্যা ট্রিবিউন ও ইন্ডিয়া টাইমস।

Check Also

হিরো আলমের বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ, তদন্তে নামছে পুলিশ

একের পর ঘটনার জন্ম দিয়ে আলোচনায় থাকেন আলোচিত-সমালোচিত সোশ্যাল তারকা আশরাফুল হোসাইন আলম ওরফে হিরো …