টয়লেটে বসে গেম খেলার সময় পশ্চাৎদেশে সাপের কামড়

টয়লেটে বসে বসে মোবাইলে গেম খেলার অভ্যাস আছে? তাহলে এই ঘটনায় আঁতকে উঠতে বাধ্য আপনি! শৌচাগারে গিয়ে টয়লেটে বসে আপন মনে মোবাইলে গেম খেলছিলেন বছর আঠাশের যুবক। হঠাৎ পশ্চাৎদেশে তীব্র জ্বলন!

মোবাইলে গেম খেলার সময় ওই যুবকের নিতম্বে কামড় বসিয়ে দেয় এক সাপ! নিউজউইকের মতে, মালয়েশিয়ার যুবক সাবরি তাজালি টয়লেটে বসে তাঁর মোবাইল ফোনে ভিডিও গেম খেলছিলেন, তখনই নিতম্বে কামড় দেয় সাপটি। কিন্তু মজার বিষয় হল, গেমে মত্ত যুবক

কামড়ের পরেও বুঝতে পারেননি কতটা ক্ষত হয়েছে। দুই সপ্তাহ পরে তিনি জানতে পারেন তাঁর নিতম্বে দাঁতের ছাপ রেখে গেছে সাপটি, সাপের দাঁতও নাকি ভেঙে গিয়েছে কামড়াতে গিয়ে।“দুই সপ্তাহ পর আমি ক্ষতস্থানটি পরীক্ষা করে দেখলাম, সাপের অর্ধেক দাঁত তখনও ক্ষতস্থানে ছিল। সম্ভবত ওর দাঁত ভেঙে গেছে কারণ আমি সাপটিকে

জোরে ধাক্কা মারি,” মালয়েশিয়ার একটি স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে জানান সাবরি তাজালি।মালয়েশিয়ার যুবক সাবরি তাজালি প্রথম তাঁর এই অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন ট্যুইটারে। ঘটনাটিকে ‘দুর্ভাগ্যজনক মুহূর্ত’ হিসেবেই মনে করছেন তিনি। সাবরি আরও জানিয়েছেন ঘটনাটি ঘটে গত মার্চ মাসে।সাবরি তাজালি জানিয়েছেন, প্রায়শই মলত্যাগের সময়

প্রায় মিনিট ১৫ মোবাইলে গেম খেলেন তিনি। গত ২৮ মার্চ তিনি অবাক হয়ে দেখেন একটি সাপ তাঁর নিতম্বে আটকে রয়েছে। আতঙ্কিত তাজালি সাপটিকে টেনে ছাড়িয়ে ছুটে বাথরুম থেকে বেরিয়ে যান।নিউজউইকের মতে, তাজালি জানিয়েছেন, সাপটি বিষধর নয় জেনে এবং কামড়ের ফলে খুব ব্যথা না হওয়াতে স্বস্তি পেয়েছিলেন তিনি।

স্থানীয় ফায়ার অ্যান্ড রেসকিউ ডিপার্টমেন্টে ফোন করেন তিনি। তারাই এসে অজগরটিকে উদ্ধার করেন। পরে তাজালি হাসপাতালে গিয়ে অ্যান্টি টিটেনাস ইঞ্জেকশনও নেন। তিনি জানান, তাঁর পরিবার ৪০ বছর ধরে সেখানে বসবাস করছে, এই জাতীয় ঘটনা এই প্রথম।তাজালি জানান, তিনি এতটাই ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন যে প্রায় দুই সপ্তাহ বাড়ির টয়লেট ব্যবহারই করেননি তিনি, পরিবর্তে একটি স্থানীয় মসজিদের টয়লেট ব্যবহার করেন।

About admin

আমার পোস্ট নিয়ে কোন প্রকার প্রশ্ন বা মতামত থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন অথরা মেইল করতে পারেন admin@sottotv.com এই ঠিকানায়।