বিয়ের পরেই জানতে পারেন স্ত্রীর ‘পুরুষাঙ্গ’ রয়েছে, আদালতের দ্বারস্থ স্বামী

বিয়ের আগে দেখা, কথা-বার্তাও হয়েছিল। সেই সময় কোনো সমস্যাই ছিল না। কিন্তু বিয়ের পরই স্বামী বুঝতে পারলেন তিনি ‘প্রতারিত’ হয়েছেন। সেই অভিযোগেই তিনি বিবাহ বিচ্ছেদের আর্জিও জানালেন সুপ্রিম কোর্টে। ওই ব্যক্তির দাবি, তার স্ত্রী আসলে নারীই নন। কারণ তার যৌনাঙ্গ পরিপূর্ণ নয়, যোনীর বদলে রয়েছে ছোট্ট শিশুর মতো পুরুষাঙ্গ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়, বিয়ের আগে এই কথা লুকানোয় প্রতারণার অভিযোগে তিনি সুপ্রিম কোর্টে বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন জানান। এবার শীর্ষ আদালত থেকে ওই ব্যক্তির অভিযোগের ভিত্তিতে তার স্ত্রীর প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হল।

বিচারপতি সঞ্জয় কিষাণ কৌল ও বিচারপতি এমএম সুন্দ্রেশ শুক্রবার ওই মহিলাকে তার স্বামীর দায়ের করা আর্জির জবাব দিতে বলা হয়। গতবছর ২৯ জুলাই এই মামলায় মধ্য প্রদেশ হাইকোর্টের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করেই ওই ব্যক্তি মেডিকেল রিপোর্টের ভিত্তিতে প্রতারণার অভিযোগ এনে বিবাহবিচ্ছেদের দাবি জানান।

About admin

Check Also

মেয়ের সঙ্গে ঈদ করা হলো না বাবার

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আবু জাহের। দীর্ঘ চার বছর পর বিদেশ থেকে দেশের মাটিতে ফিরেছেন। দেশে …