জামিনে মুক্তি পেয়েই হিরো আলমের চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেছেন একা

ঢাকাই চলচ্চিত্রের নব্বই দশকের চিত্রনায়িকা একা। সেই সময় জনপ্রিয় নায়কদের বিপরীতে কাজ করে আলোচিত হন তিনি। কিন্তু চিত্রনায়ক মান্নার মৃত্যুর পর চলচ্চিত্র থেকে অন্তরালে চলে যান একা। কিছুদিন আগে মাদক ও গৃহকর্মীকে নির্যাতনের মামলায় কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি। জামিনে মুক্তি পেয়েই হিরো আলমের প্রযোজনায় নতুন একটি চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেছেন। ছবির নাম নাম্বার ওয়ান হারামি। এই ছবিতে হিরো আলমের দুই নায়িকার একজন একা। অন্যজন রিয়া মণি।

জাগো নিউজ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম। হিরো আলম জানান, আমি নতুন সিনেমার শুটিং শুরু করেছি। এই সিনেমায় আমার নায়িকা দুইজন, একজন একা আপু, আরেকজন রিয়া মণি। গানের মাধ্যমে শুটিং শুরু হয়েছে। এরপর আমরা সিনেমার মূল শুটিং শুরু করব। তিনি আরও জানান, একা আপু আমার বড়। তিনি চলচ্চিত্রে অভিজ্ঞ লোক। তার থেকে অনেক কিছুই শিখছি। তিনি আমাকে সাহায্য করছেন শুটিংয়ে। এ ছাড়া রিয়া মণি নতুন হিসেবে ভালো কাজ করছে।

শাহিদা থেকে নায়িকা একা হওয়ার গল্প: ঢাকাই চলচ্চিত্রের নব্বই দশকের চিত্রনায়িকা একা। ১৯৯৭ সালে রূপালি পর্দায় যাত্রা শুরু হয় তার। কিন্তু চিত্রনায়ক মান্নার মৃত্যুর পর চলচ্চিত্র থেকে অন্তরালে চলে যান তিনি।

শাহিদা আরবী সিমন নাম নিয়ে তোজাম্মেল হক বকুল পরিচালিত ‘রাখাল রাজা’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় নায়িকা একার। তবে ব্যবসায়ীকভাবে ‘রাখাল রাজা’ সিনেমাটি সফল হয়নি। পরের বছরই প্রয়াত সুপারস্টার মান্নার সঙ্গে জুটি বেঁধে ‘তেজী’ সিনেমায় অভিনয় করেন। এ সিনেমা পরিচালনা করেন গুণী নির্মাতা কাজী হায়াৎ।

এরপর তিনি কীভাবে একা নাম ধারণ করলেন? নাম পরিবর্তনের নেপথ্যের ঘটনা কী?

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ‘তেজী’ সিনেমার পরিচালক কাজী হায়াৎ বলেন, ‘ডিপজল সাহেব সিনেমা বানাবেন। গল্প রেডি। তখন সিনেমার নামও ঠিক করা হয়নি। মান্নাও তখন হিট হয়নি। তার বিপরীতে প্রথমে পপিকে বললাম। হঠাৎ করেই মহরতের দিন বেঁকে বসেন পপি। শেষ পর্যন্ত পপিকে পেলাম না। এর পরে মুনমুনকে বললাম সেও রাজি হলো না। পূর্ণিমা সিনেমায় তখন নতুন তাকেও বললাম রাজি হয়নি। পরিচালক হান্নান বললেন-তোজাম্মেল হক বকুল নতুন একটা নায়িকা নিয়ে আসছেন। ওকে দেখতে পারেন। পরে যোগাযোগ করলে একা সিনেমাটিতে কাজ করে। এরপরই সিমনকে এ সিনেমায় অভিনয়ের প্রস্তাব দেয়া হয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘আর সেই সময়ই সিমনকে বলা হয় আজ থেকে তোমার কেউ নেই তুমি একা। আর এই সিনেমায় তোমার নামও একা। পরে একা নাম নিয়ে ‘তেজী’ সিনেমাটি মুক্তি পায়। হিটও হয়। এরপর থেকে একা নাম নিয়েই চলচ্চিত্রে কাজ করেন তিনি।’

একা অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘পাগলা হাওয়া’। কাজী হায়াৎ পরিচালিত এ সিনেমা মুক্তি পায় ২০১২ সালে। এরপর অজানা কারণে চলচ্চিত্র জগৎ থেকে দূরে সরে যান তিনি।

তবে সম্প্রতি গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়ে আলোচনায় এসেছেন এই নায়িকা। জরুরি সেবার হটলাইন ৯৯৯-এ গৃহকর্মী হাজেরার অভিযোগ পেয়ে ৩১ জুলাই রাতে রাজধানীর রামপুরার বাসা থেকে একাকে গ্রেপ্তার করে হাতিরঝিল থানা পুলিশ।

গৃহকর্মী নির্যাতন ও মাদক আইনের দুই মামলায় পুলিশের করা রিমান্ড আবেদন গত ১ আগস্ট নাকচ করে ঢাকাই সিনেমার এক সময়ের নায়িকা সিমন হাসান একাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

এ প্রসঙ্গে হাতিরঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রশিদ বলেন, তিন মাস ধরে হাজেরা বেগম নামে এক গৃহকর্মী পাঁচ হাজার টাকা মাসিক বেতনে একার বাসায় কাজ করে আসছিলেন। বাসা পরিবর্তনের সময় হাজেরাকে অতিরিক্ত কাজ করতে বলেন একা। আরও অন্য কাজ থাকায় হাজেরা বেগম আপত্তি করেন। একপর্যায়ে হাজেরা তার বর্তমান মাসের বেতনও চান। কিন্তু আগের দু’মাসের বেতন পরিশোধ করেন একা। জুলাই মাসের বেতন চাইলে একা ক্ষিপ্ত হয়ে গৃহকর্মীকে মারধর করেন। খবর পেয়ে প্রতিবেশী ও আশপাশের লোকজন একার বাসা ঘেরাও করেন। তারা ৯৯৯-এ কল করে বিষয়টি অবহিত করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে একা ভেতর থেকে দরজা বন্ধ রাখেন। পরে পুলিশ দরজা ভেঙে একাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

ওসি আরো বলেন, শনিবার রাতে হাতিরঝিল থানায় অফিসারের রুমে বসে একা অস্বাভাবিক আচরণ করছিলেন। নিয়ন্ত্রণহীন মেজাজে থানার ভেতরে, কখনো সংবাদকর্মীর ওপর আবার কখনো পুলিশ সদস্যদের ওপর চড়াও হচ্ছিলেন। একপর্যায়ে অসুস্থতার ভান করে এক নারী পুলিশ সদস্যকে ধাক্কা মেরে দেন একা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নিয়মিত মাদক সেবনের কথা স্বীকার করেছেন অভিনেত্রী জানিয়ে ওসি বলেন, তাকে আটকের সময় তার বাসা থেকে পাঁচ পিস ইয়াবা, ৫০ গ্রাম গাঁজা এবং অর্ধেক বোতল মদ পাওয়া যায়।

পরে গতকাল রাতেই একার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন তার গৃহকর্মী হাজেরা। এছাড়া একার বাসা থেকে মাদক উদ্ধার হওয়ার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে আরেকটি মামলা করেন।

প্রায় সব তারকা নায়কদের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করে হিট সিনেমা উপহার দেন একা। তবে সবচেয়ে সফল ছিলেন মান্না-একা। মান্নার সঙ্গেই টানা ২০-২৫টির মতো সিনেমায় অভিনয় করেন একা। ওই সময়ে এ জুটিকে লুফে নিয়েছিল দর্শক।

মান্নার মৃত্যুর পর রুবেল, অমিত হাসান, আমিন খান, আলেকজান্ডার বো, শাকিল খান, ফেরদৌস, শাকিব খানসহ সবার সঙ্গেই অভিনয় করে সাফল্য পেয়েছেন এই নায়িকা।

About admin

আমার পোস্ট নিয়ে কোন প্রকার প্রশ্ন বা মতামত থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন অথরা মেইল করতে পারেন admin@sottotv.com এই ঠিকানায়।