‘বিয়ের চাপে’ লন্ডনপ্রবাসীর কিশোরী স্ত্রীকে হত্যা করেন গৃহশিক্ষক

স্বামী প্রবাসের থাকার সুযোগে গৃহশিক্ষক মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের (২২) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে লন্ডনপ্রবাসী যুবকের কিশোরী স্ত্রীর। এক পর্যায়ে বিয়ের জন্য চাপ দিলে ওই কিশোরীকে হত্যা করে গৃহশিক্ষক মহিউদ্দিন। ঘটনাটি ঘটেছে সিলেটের ছাতক এলাকায়। বছর দুয়েক আগে লন্ডনপ্রবাসী ওই যুবকের সঙ্গে বিয়ে হয় কিশোরীর।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থেকে মহিউদ্দিনকে গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানায় সিআইডি। রাজধানীর মালীবাগ সদর দফতরে শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর সাংবাদিকদের বলেন, মহিউদ্দিন ওই কিশোরী গৃহবধূকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ১৭ নভেম্বর সন্ধ্যার পর বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী পার্শ্ববর্তী ধানক্ষেতে নিয়ে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায় সে।

১৯ নভেম্বর নিহত কিশোরীর বাবা ছাতক থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে ২১ নভেম্বর সকালে ধানক্ষেতে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় ওই কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছে সিআইডি। রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানা যাবে। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গ্রেফতারকৃত মহিউদ্দিন সিলেটের ছাতকে খারগাঁও হাফিজিয়া মাদ্রাসা হতে ২০১৮ সালে হেফজ পাস করে‌।

About admin

Check Also

সম্পর্কের পর বাতি জ্বালাতেই দেখেন অন্য কেউ!