হিরো আলমের ২ বউয়ের ফোনালাপ যা শুনলে আপনারও খারিয়ে যাবে।

একাধিক নারীসঙ্গের কারণে দ্বিতীয় বিয়েও ভাঙতে বসেছে! কী বলছেন হিরো আলম? দুই বাংলার জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া তারকা আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম। বগুড়ার হিরো আলমের গান নিয়ে চর্চার শেষ নেই। নেটমাধ্যমে তাঁর অনুরাগীর সংখ্যা আকাশ ছোঁয়া। একের পর এক বিদেশি ভাষায় গান গেয়ে আলোচিত-সমালোচিত হয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি ফেসবুক লাইভে এসে বিস্ফোরক অভিযোগ করেন হিরো আলম। কেউ কেউ তাঁর জনপ্রিয়তা নষ্ট করার চেষ্টা করছে, এমনই অভিযোগ করেন তিনি। তিন বছরের মাথায় সংসার ভাঙছে এই সোশ্যাল মিডিয়া তারকার? সদ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে, হিরো আলম এবং তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী’র একটা ডিভোর্সের চিঠি। এরপর থেকেই তাঁদের বিচ্ছেদ নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়েছে।

ফেজবুক থেকে দেখতে এখানে ক্লিক করুন

মঙ্গলবার ফেসবুক লাইভে এসে এ বিষয় মুখ খুলেছেন হিরো আলম। তিনি অভিযোগ করেন, তাঁর পিছনে শত্রু লেগেছে। এর পিছনে একটা অসাধু চক্র কাজ করছে। এক গোষ্ঠী তাঁর জনপ্রিয়তা নষ্ট করার চেষ্টা করছে।

জানা গিয়েছে, বগুরায় থাকেন তাঁর প্রথম স্ত্রী। সন্তানও রয়েছে তাঁদের। পরে ঢাকায় নুসরাত জাহান সাথীর সঙ্গে সংসার পাতেন তিনি। গত কয়েক বছর ধরে তাঁরা একসঙ্গে একাধিক কাজ করছেন।

নুসরাতের কথায়, ‘হিরো আলমের সঙ্গে আমার বিয়ে হয় ২০১৯ সালে। আমাদের সংসার খুব ভালো চলছিল। আমি জানতাম ওর আগের পক্ষের বউ, সন্তান রয়েছে। তবে আমার কাছে হিরো আলম বলেছিল, তার প্রথম বউকে তালাক দিয়েছে। এরপর আমি খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারি তা মিথ্যা এবং নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে সেই পরিবারে। এরপর থেকে আমার সঙ্গে হিরো আলমের সংসার জীবনের ঝামেলা শুরু হয়।’ এখানেই শেষ নয়, হিরো আলমের একাধিক নারীসঙ্গের অভিযোগও আনেন নুসরাত।

দ্বিতীয় স্ত্রী নুসরত প্রসঙ্গে হিরো আলম বলেন, ‘একটি ডিভোর্স পেপার ফেসবুকে ঘুরছে, এটা সত্যি। কিন্তু সেটা অনেক আগের। আমার আর নুসরাতের মধ্যে ঝামেলা হয়েছিল। আমরা ডিভোর্স দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু দুই মাসের মধ্যে সেই ঝামেলা মিটে যায়। আবার আমরা একসঙ্গে থাকছি। এখন আর আমাদের মধ্য়ে ঝামেলা নেই।’ বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়ানোর যে অভিযোগ উঠছে তাঁর বিরুদ্ধে, তা ভুয়ো বলে দাবী করেন আশরাফুল আলম।