খুলনায় নিরাপদ বোধ করছেন না মরিয়ম, মাকে নিয়ে ঢাকায়

টানা ২৯ দিন নিখোঁজের পর আলোচিত মরিয়ম মান্নানের মা রহিমা বেগমকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। এরপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়াতে চলছে নানা সমালোচনা। এই দীর্ঘ সময় নিখোজ থাকার পরপরেই উদ্ধার হওয়া রহিমা বেগম তার মেয়ে মরিয়ম মান্নানের সঙ্গে খুলনা থেকে ঢাকায় চলে গেছেন। এর আগে গতকাল রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় খুলনার মেট্রোপলিটন আদালতে ২২ ধরায় জবানবন্দি দেওয়ার পর রাতে মা ও মেয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন। গভীর রাত আড়ইটার দিকে তারা ঢাকায় পৌঁছান।

আজ বিকালে মরিয়ম মান্নান গনমাধ্যমে জানান, “গতকাল আদালত থেকে মাকে নিয়ে বের হওয়ার পর বয়রার বাসায় গিয়েছিলাম। মার জন্য খুলনা নিরাপদ মনে হয়নি। রাতেই মাকে নিয়ে ঢাকায় চলে আসি।”তাদের সঙ্গে ছোট বোন আদুরি বেগম ও বড় দুলাভাই রয়েছেন বলে জানান মরিয়ম। সবাই এখন রাজধানীর বসুন্ধরা এলাকার বাসায় রয়েছেন। মরিয়ম আরও বলেন, সোমবার মাকে নিয়ে ডাক্তারের কাছে গিয়েছিলেন।

এর আগে খুলনার মহেশ্বরপাশার বণিকপাড়া থেকে গত ২৭ অগাস্ট নিখোঁজ হন ৫৫ বছর বয়সী রহিমা বেগম। এরপর থেকে তার সন্ধান করছিলেন তার মেয়ে মরিয়ম মান্নানসহ চার বোন। এনিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনও করা হয়। গত বৃহস্পতিবার ময়মনসিংহের ফুলপুরে তার মায়ের লাশ পাওয়া গেছে বলে মরিয়ম মান্নান ফেইসবুক পোস্ট দেন।

এরপর এ নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশ হলে তা আলোচনায় আসে। পরবর্তীতে নিখোঁজের ২৯ দিন পর শনিবার রাতে রহিমা বেগমকে ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামের কুদ্দুস মোল্লার বাড়ি থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তাকে খুলনার দৌলতপুর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তাকে পিবিআইয়ে হস্তান্তর করা হয়।

About admin

Check Also

সম্পর্কের পর বাতি জ্বালাতেই দেখেন অন্য কেউ!