রবিবার , জানুয়ারী 29 2023

যা চাইবেন তার চেয়ে বেশি দেবো, ওয়াদা দেন নৌকায় ভোট দেবেন: প্রধানমন্ত্রী

এবার দক্ষিণাঞ্চলের মানুষকে আগামী দিনে আরও উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বিগত দিনেও দেশের উন্নয়ন করেছি, আপনারা সুযোগ দিলে আগামী দিনেও উন্নয়ন করবো। কাজেই ওয়াদা দেন, আবারও নৌকায় ভোট দিয়ে আমাদের জয়যুক্ত করবেন।’ আজ বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ব্কিালে যশোর শহরের শামস-উল হুদা স্টেডিয়ামে আওয়ামী লীগের জনসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই যশোরে আমার নাড়ির টান আছে। এখানের মাটিতে আমার নানা শেখ জহুরুল হক শুয়ে আছেন। তিনি যশোরে চাকরি করতেন। আমার মায়ের বয়স যখন তিন বছর ছিল তখন তিনি মারা যান। ওই সময় যোগাযোগ ব্যবস্থা এতই খারাপ ছিল, এর কারণে এখানে আসা যায়নি। তাই আমার নানাকে এখানে দাফন করা হয়েছে। এখানে আমার নানার স্মরণে আইটি পার্ক করা হবে।’

শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘এজন্য যা যা দরকার আমাদের সরকার কাজ করবে। আমি আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসা চাই। একইসঙ্গে আপনাদের কাছে ওয়াদা চাই, আপনারা আগামী নির্বাচনে আবারও নৌকায় ভোট দিয়ে আমাদের জয়যুক্ত করবেন। আপনারা যা চাইবেন, আমি তার চেয়ে বেশি দেবো।’

এর আগে দুপুর ১২টা ২২ মিনিটে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে সমাবেশ শুরু হয়। এতে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা।

ব্যাংকে থেকে টাকা তুলে ঘরে রাখলে চোরে নিয়ে যাবে: প্রধানমন্ত্রী

আজ বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ব্যাংকে থেকে টাকা তুলে ঘরে রাখলেতো চোরে নিয়ে যাবে। আজ বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর বিকেলে যশোরে এক জনসভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেকে বলে ব্যাংকে টাকা নেই, এ কথাটা মিথ্যা। ব্যাংকগুলোতে যথেষ্ট টাকা রয়েছে। তারপরও কেউ কেউ বিশ্বাস না করে ব্যাংক থেকে টাকা তুলছে। ব্যাংকে থেকে টাকা তুলে ঘরে রাখলেতো চোরে নিয়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, কেউ কেউ রিজার্ভ নিয়েও কথা বলে। রিজার্ভের কোন সমস্যা নাই। রেমিট্যান্স আসছে। বিদেশ থেকে বিনিয়োগ আসছে। আমদানি ও রপ্তানি আয় বৃদ্ধি পেয়েছে।

এ সময় শেখ হাসিনা বলেন, বৈশ্বিক মন্দায় অন্য দেশগুলো যেখানে হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে বাংলাদেশের অর্থনীতি যথেষ্ট শক্তিশালী আছে।

এদিকে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষকে আগামী দিনে আরও উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিনি বলেন, আপনারা সুযোগ দিলে আগামী দিনেও উন্নয়ন করবো। কাজেই ওয়াদা দেন, আগামীতে নৌকায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন।

প্রস্তুত হন, ডিসেম্বরে খেলা হবে: নেতাকর্মীদের কাদের

আজ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘যশোর ও খুলনার মানুষ প্রস্তুত হন, বিএনপির সঙ্গে ডিসেম্বরে খেলা হবে। খেলা হবে তাদের দুর্নীতি ও লুটপাটের বিরুদ্ধে।’ আজ বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর দুপুরে যশোর শহরের শামস-উল হুদা স্টেডিয়ামে আওয়ামী লীগের জনসভায় তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মির্জা ফখরুল এখন বড় বড় কথা বলছেন। গণতন্ত্র হত্যাকারী। উনাদের মুখে গণতন্ত্রের বুলি শোভা যায় না। তিনি কোন মুখে গণতন্ত্রের কথা বলেন? বিএনপি কোন মুখে গণতন্ত্রের কথা বলে? আইনের শাসনের কথা বলে? বিএনপি কোন মুখে নির্যাতনের কথা বলে?’

তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপি বেঈমানের দল, বিশ্বাসঘাতকের দল। এরা ১৫ আগস্টে সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে। খুনি জিয়া বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুরস্কৃত করেছে। খুনিদের দায়মুক্তির জন্য আইন করেছে, এরা খুনি, এরা ঘাতক। এরা ৩ নভেম্বর জেলহত্যাকাণ্ড সংঘটিত করেছে। এরা ২১ আগস্ট আমাদের নেত্রী দেশরত্ম শেখ হাসিনাকে টার্গেট করে গ্রেনেড হামলা চালিয়েছিল।’

তিনি বলেন, ‘এরা কারা? বাংলাদেশ নালিশ পার্টি, যেটা বিএনপির আরেক নাম। পলাশীর সেনাপতি ইয়ার লতিফ, আর পঁচাত্তরের বাংলাদেশে ১৫ আগস্টে বাংলাদেশের সেনাপতি জিয়া। বিশ্বাসঘাতকের অপর নাম জিয়াউর রহমান। সে যদি এই হত্যাকাণ্ডের পেছনে না থাকতো, কারও সাহস ছিল না বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে।’

তিনি বলেন, ‘ঢাকা শহরে বড় বড় লোকেরা বাড়ির সামনে কুকুর রাখেন, সেই কুকুর থেকে সাবধান। আমরা বলি বিএনপি থেকে সাবধান। তারা যখন ক্ষমতায় যখন ছিল তখন বিদ্যুৎ গিলেছে, রিজার্ভ গিলেছে, গণতন্ত্র গিলেছে, ভোট চুরি করেছে। ক্ষমতায় যখন ছিল এই বিএনপি হাজার হাজার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীকে হত্যা করেছে। বিএনপি বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধকে ধুলায় লুণ্ঠিত করেছে। স্বাধীনতার আদর্শকে তারা ধুলায় পদদলিত করেছে। এই সেই বিএনপি, তারা যদি আরেকবার ক্ষমতায় আসতে পারে, গোটা দেশ গিলে খাবে।’

Check Also

ছাত্রদলেরর হাতে যখন অস্ত্র, ছাত্রলীগের হাতে তখন কলম: প্রধানমন্ত্রী

আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ক্ষমতায় থাকাকালীন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ছাত্রদের হাতে অস্ত্র …