অফিস সহায়ক এর কাজ কি ও বেতন কত

অফিস সহায়ক এর কাজ কি ও বেতন কত একজন অফিস সহায়ক হিসেবে যদি আপনি কর্মরত হতে চান সেক্ষেত্রে আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা, দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা হিসেবে কি কি থাকতে হবে? এ সকল বিষয়ে জানতে অনেকেই আগ্রহী। তাই আপনারা যারা, অফিস সহায়ক হিসেবে কাজ করতে চান, তারা আমাদের আজকের এই প্রবন্ধটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

কেননা আমরা আজকের এই আর্টিকেলে ধারাবাহিকভাবে অফিস সহায়ক এর বেতন এবং অফিস সহায়ক এর দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে এ টু জেড আলোচনা করব।

অফিস সহায়ক এর কাজ কি


একজন অফিস সহায়ক এর কাজ হলো– উদ্ধতন কর্মকর্তাদের প্রয়োজনে সকল প্রকার সাহায্য করা। সহজ ভাবে বলতে গেলে বলা যায় অফিসের কাজে সহযোগিতা করাই হচ্ছে একজন অফিস সহায়ক এর কাজ।

অফিস সহায়ক কাকে বলে

অফিস সহায়ক কাকে বলেঃ অফিস সহায়ক চাকরির সাথে আমরা সবাই কমবেশি পরিচিত। মূলত যারা অফিসের সহায়ক হিসেবে কর্মরত থাকেন তারাই হচ্ছেন অফিস সহায়ক কর্মচারী। একটু ভিন্নভাবে বললে বলা যায়— বাংলাদেশ সরকারের চাকরি খাতের চতুর্থ শ্রেণীর একটি চাকরি হচ্ছে অফিস সহায়ক চাকরি। যাদেরকে আমরা পিয়ন, দফতরি, চাপরাশি বা আর্দালি নামে সম্বোধন করে থাকি তাদেরকেই অফিস সহায়ক বলা হয়। যাদের জন্য রয়েছে মানসম্মত বেতন এবং নানা সুযোগ সুবিধা ও সম্ভাবনা।

অফিস সহায়ক এর বেতন কতঃ অফিস সহায়ক চাকরির বেতন আনুমানিক ৮,২৫০ টাকা থেকে শুরু করে ২০,০০০ টাকা পর্যন্ত। তবে প্রতিষ্ঠান বা ক্ষেত্রবিশেষে প্রতি মাসে পারিশ্রমিক হিসেবে কখনো কখনো ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা বেতন দেওয়া হয়। এটা মূলত মূল বেতন।

আর মূল বেতনের পাশাপাশি যদি অন্য কোন আয়ের ব্যবস্থা থেকে থাকে তাহলে অফিস সহায়ক এর বেতন পরিসীমাটা আরো বেশি বৃদ্ধি পাবে। সুতরাং এ ক্ষেত্রে আপনার বেতনের পরিমাণটা গিয়ে দাঁড়াবে ২৫ থেকে ৩০ হাজার বা তার অধিক।

অফিস সহায়ক এর পেনশন কত টাকাঃ একজন সরকারি অফিস সহায়ক এর পেনশন মূলত বিভিন্ন স্তরের কর্মচারীদের জন্য আলাদা আলাদা হয়ে থাকে। তবে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃপক্ষ প্রদত্ত তথ্য অনুযায়ী সরকারি অফিস সহায়কের পেনশন প্রতিমাসে ৫,৬০০ টাকা।

অফিস সহায়ক এর যোগ্যতা

অফিস সহায়ক হচ্ছে বাংলাদেশের একটি মাঝে মাঝে পর্যায়ের চাকরি। যিনি অফিস ব্যবস্থাপনায় সহযোগিতা করে থাকেন। অফিস সহায়ক হিসেবে আপনি যদি কর্মরত হতে চান সে ক্ষেত্রে যোগ্যতা হিসেবে আপনার যেগুলো থাকতে হবে সেটা হলো:-

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ এক্ষেত্রে আপনার কমপক্ষে মাধ্যমিক পাস হতে হবে। তবে একজন স্কুল সহায়ক হিসেবে আপনি অষ্টম শ্রেণী পাস হলেও যোগদানের সুযোগ পাবেন। তবে কখনো কখনো বিভিন্ন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান মাধ্যমিক পাস ছাড়াও অফিস সহায়ক পদে জনবল নিয়োগ দিয়ে থাকে। তাই আপনি চাইলে সার্কুলার যাচাই-বাছাই করে আবেদন করতে পারবেন।

কম্পিউটার দক্ষতাঃ একজন সহকারী হিসেবে কাজ করতে হলে আপনার কম্পিউটার সম্পর্কে মোটামুটি ভালো ধারণা থাকতে হবে। কেননা আপনি যদি কম্পিউটার ও ইন্টারনেট ব্যবহারে দক্ষ না হয়ে থাকেন তাহলে দৈনন্দিন যে কাজগুলো সম্পাদন করতে হবে সেগুলো করতে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে।

তাই যেকোনো সফটওয়্যার ব্যবহারের দক্ষতা অর্জন করার জরুরী পাশাপাশি ইন্টারনেট থেকে সার্চ করে নতুন বিষয়ে জানতে পারার সক্ষমতা থাকাও জরুরী। আর এই ক্ষেত্রে কম্পিউটার ও ইন্টারনেটের দক্ষ ব্যক্তিদেরকে অগ্রাধিকার প্রদান করা হয়ে থাকে সচরাচর।

উপস্থাপন দক্ষতাঃ সহজে লেখা এবং খুব সহজ ও সাবলীলভাবে যেকোনো কিছু উপস্থাপন করা একজন অফিস সহায়কের কাজ। তাই আপনাকে সর্বদা মানসিক ও শারীরিক ভাবে সুস্থ থাকতে হবে পাশাপাশি উপস্থাপন দক্ষতা শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং কম্পিউটারও ইন্টারনেট ব্যবহার সম্পর্কে সম্যক ধারণা থাকা জরুরী।

মূলত এই কয়েকটি যোগ্যতা যদি আপনার মাঝে থেকে থাকে তাহলে আপনি যে কোন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানে অফিস সহায়ক এর পদ কি লাভ করতে পারবেন এবং কর্মরত হতে পারবেন একজন অফিস সহায়ক হিসেবে।

অফিস সহায়ক এর কাজ কি ও বেতন কত

অফিস সহায়ক এর পদোন্নতিঃ অফিস সহায়ক এর পদোন্নতি সম্পর্কে অনেকেরই জানার আগ্রহ থাকে। কেননা অনেকেরই ধারণা অফিস সহায়ক চাকরিতে কোন পদোন্নতি নেই। তবে আপনারা যারা এমনটা ভেবে থাকেন তাদের ধারনাটা সম্পূর্ণ ভুল বলা চলে।

কেননা সরকারি অফিস বা প্রতিষ্ঠানভেদে অফিস সহায়ক কর্মচারীদের পাঁচ বছর কাজ করার পর পাঁচ বছরের অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে পদোন্নতির সুযোগ দেওয়া হয়ে থাকে। যখন আপনি চাইলে অফিস সহকারী থেকে অফিস সহকারে কাম কম্পিউটার মধ্যে খরিক অপারেটর পদে আবেদন করতে পারবেন।

অফিস সহায়ক এর গ্রেড কত?
অফিস সহায়ক এর গ্রেড হচ্ছে ২০ তম। সুতরাং এটা চতুর্থ শ্রেণীর একটি চাকরি। যার বেতন মোটামুটি আট হাজার থেকে শুরু করে কুড়ি হাজারের অধিক, যেটা আমরা ইতিমধ্যে উল্লেখ করেছি।

অফিস সহায়ক এর দায়িত্ব ও কর্তব্য

আমরা ইতোমধ্যে এটা বুঝতে সক্ষম হয়েছে যে, অফিস সহায়ক এর কাজ হচ্ছে অফিসের কাজে সহযোগিতা করা। সুতরাং অফিসের যেসকল কাজকর্ম সংগঠিত হচ্ছে সেগুলো করার ক্ষেত্রে কোনো রকম সাহায্যের প্রয়োজন হলে যার মাধ্যমে করানো হয় তিনি হচ্ছেন অফিস সহকারী যিনি ওই প্রতিষ্ঠানে অফিস সহায়ক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। একজন অফিস সহায়ক এর দায়িত্ব ও কর্তব্য হিসেবে কি কি কাজ করতে হয় সেটা আমরা জানি না।

তাই আর্টিকেলের এ পর্যায়ে আমরা অফিস সহায়ক এর দায়িত্ব ও কর্তব্য বা অফিস সহায়ক এর কাজ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। সুতরাং তুলে ধরব, অফিস সহায়ক হিসেবে আপনি মূলত কি কি কাজ করবেন সেগুলো।

যথা:-

  • অফিসের ফাইল নির্দেশনা অনুযায়ী একটি নির্দিষ্ট স্থানে রেখে দেওয়া।
  • যেকোনো প্রয়োজনে প্রতিষ্ঠান প্রধানের অনুমতি নিয়ে অফিসের ফাইলসমূহ অন্যত্র স্থানান্তর করা।
  • গুরুত্বপূর্ণ ফাইল সমূহ স্টিলের বাক্সবন্দী করে নির্দেশনা অনুযায়ী অফিস হতে অন্যত্র রাখা।
  • অফিসের সমস্ত মনিহারি ও অন্যান্যদ্রব্য সংরক্ষণের দিকে নজর দেওয়া।
  • সাধারণ জনগণের সাথে ভদ্র আচরণ করা।
  • অফিস প্রধানের অনুমতি ছাড়া অফিস ত্যাগ না করা
  • অফিস ভেদে নির্ধারিত ইউনিফর্ম পরিধান করা
  • প্রয়োজন বোধে হালকা আসবাবপত্র অফিসের মধ্যে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে সরানোর দায়িত্ব গ্রহণ করা
  • কর্মচারী বা কর্মকর্তাদের জন্য কখনো কখনো নাস্তার ব্যবস্থা করা
  • কর্মকর্তার পক্ষে ব্যাংকে চেক জমা করা এবং টাকা তুলে নিয়ে আসা

মোটকথা সকাল ৯ টা থেকে শুরু করে পাঁচটা পর্যন্ত শ শাখা এবং কর্মকর্তার নির্দেশিত কাজ করাই হচ্ছে অফিস সহায়কের দায়িত্ব ও কর্তব্য। অর্থাৎ আপনার অফিসের যে সিনিয়র কর্মকর্তা বা অফিসারগুলো থাকবে তাদের যে কোন কাজে হেল্প করা এবং তাদের নির্দেশনা মেনে চলায় হবে একজন অফিস সহকারি বা অফিস সহায়ক এর কাজ।

অফিস সহায়ক এর ইংরেজি নাম

অফিস সহায়ক এর ইংরেজি হলোঃ

  1. office assistant
  2. office support staff

অফিস সহায়ক এর সুযোগ সুবিধা সমূহঃ ইতমধ্যে আমরা অফিস সহায়ক হিসেবে চাকরি করলে কত টাকা বেতন পাওয়া যায় সে সম্পর্কে জেনেছি। তবে একজন অফিস সহায়ক সুযোগ-সুবিধা হিসেবে আর কি কি বেতন ভাতা দিয়ে পেয়ে থাকে সেগুলো আলোচনার এই পর্যায়ে তুলে ধরবো। তাহলে আসুন জেনে নেই অফিস সহায় হোক মূলত বেতনের পাশাপাশি আর কি কি সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারেন সে সম্পর্কে।

যথাঃ-

বাড়ি ভাড়া ভাতা মূল বেতনের ৬৫%
শিক্ষা ভাতা ১,০০০ টাকা
যাতায়াত ভাতা ৩০০ টাকা
মাসিক টিফিন ভাতা ২০০ টাকা
চিকিৎসা ভাতা ১৫০০ টাকা
অন্যান্য ও ধোলাই ভাতা ১০০ টাকা

অফিস সহায়ক এর কাজ কি ও বেতন কত

অফিস সহায়ক এর সম্মানঃ আমাদের সমাজে এমন অনেক মানুষ রয়েছেন যারা অফিস সহায়ক ব্যক্তিকে খুব একটা সম্মানের চোখে দেখেন না। আবার এমন মানুষ রয়েছেন যারা তাদেরকে বাবা অথবা মা সমতুল্য সম্মান করে থাকেন। এটা মূলত সেই মানুষের ব্যক্তিত্ব ও শিক্ষার উপর নির্ভর করে। কেননা কোন কাজ ছোট নয়। তাই নিম্ন পদের যে কোন চাকরিজীবী সমান সম্মান পাওয়ার অধিকার রাখে।

তাই অফিস সহায়ক হিসেবে যারা কাজ করেন তাদেরকে অনেকে ভালোবাসে এবং শ্রদ্ধার চোখে দেখে। আরেকজন মানুষ হিসেবে আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব এবং কর্তব্য সে সকল মানুষকে সম্মান দেওয়া এবং তাদের প্রতি আমাদের যে সকল দায়িত্ব রয়েছে তা পালন করার।

কেননা তাদের সহযোগিতার মাধ্যমেই আমরা বিভিন্ন অফিস বা প্রতিষ্ঠানে যে কোন কাজ গুছিয়ে করতে পারছি এবং সুবিধা পাচ্ছি। তাই আসুন অফিস সহায়কদের আমরা ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখি এবং তাদের প্রতি সম্মান ও ভালোবাসা জ্ঞাপন করি।

অফিস সহায়ক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি সংগ্রহ করতে চাইলে আপনি আমাদের ওয়েবসাইট অনুসরণ করুন অথবা এখনই গুগলে লিখে সার্চ করুন। কেননা এই মুহূর্তে অফিস সহায়ক হিসেবে কোন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়নি। তবে খুব সম্প্রতি প্রকাশ পাবে বলে আশা করা যায়। আমরা আমাদের চাকরি নিউজ ডটকম ওয়েবসাইটে সরকারি বেসরকারি সকল প্রকার চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে থাকি। তাই নতুন নতুন চাকরির সার্কুলার পেতে আমাদের অনুসরণ করতে পারেন।

অফিস সহায়ক পদে আবেদন পদ্ধতি

অফিস সহায়ক ছাড়াও আরো যে সকল চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয় সেগুলোতে আপনি মূলত অনলাইন এবং অফলাইন দুইটি মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। সুতরাং আবেদন পদ্ধতি হবে অনলাইন অথবা অফলাইন। যখন কোন বিজ্ঞপ্তিতে অনলাইনের মাধ্যমে ফ্রি প্রদানের নির্দেশনা প্রদান করা থাকবে এবং অনলাইনের মাধ্যমে সকল প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট জমা দেওয়ার কথা উল্লেখ থাকবে তখন আপনাকে ঘরে বসেই আবেদন করতে হবে, মূলত আবেদনের জন্য সেই অফিসে অথবা নির্দিষ্ট কোন ঠিকানায় সরাসরি যেতে হবে না।

আর যদি সার্কুলারে ডাকযোগে অথবা সরাসরি সাক্ষাৎকারের কথা উল্লেখ থাকে সেক্ষেত্রে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন না। এজন্য উল্লেখিত সময়সীমার মধ্যে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছাতে হবে অথবা আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টগুলো কুরিয়ারের মাধ্যমে পাঠাতে হবে তাদের দেওয়া নির্দেশনা অনুযায়ী।

তাই যেকোনো পদে আবেদনের জন্য অবশ্যই অবশ্যই চাকরির অফিশিয়াল বিজ্ঞপ্তি মনোযোগ সহকারে পড়ুন এবং সঠিক নিয়মানুবর্তিতা অনুসরণ করে আবেদন ফরম পূরণ করুন। কেননা সঠিক ইনফরমেশন এবং সঠিক নির্দেশনা মেনে যদি আপনি আবেদন করেন তাহলেই আপনার আবেদন পত্রটি গ্রহণযোগ্য হবে।

হাই স্কুলের অফিস সহায়ক এর কাজ কি

একজন হাই স্কুল প্রতিষ্ঠানের অফিস সহায়ক এর কাজ গুলো সাধারণত নিম্নলিখিত কাজগুলোর অন্তর্ভুক্ত হয়ে থাকে।

যথাঃ—

১. ফাইল ম্যানেজমেন্টঃ একজন হাই স্কুল অফিস সহায়ক এর সকল প্রকার ডকুমেন্ট, ফাইল প্রশাসনিক ডাটা এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সকল ডাটা সংরক্ষণ ও পরিচালনার কাজে নিযুক্ত থাকতে হয়। অতএব হাই স্কুলের অফিস সহায়ক এর কাজ হল ফাইল ম্যানেজমেন্ট করা।

২. ছাত্র-ছাত্রীর নিবন্ধন ও তথ্য সংগ্রহঃ ছাত্রছাত্রীদের নিবন্ধন সংক্রান্ত প্রায় যাবতীয় কাজ এবং সকল প্রকার তথ্য সংগ্রহের কাজ করতে হয় একজন হাই স্কুল অফিস সহায়ক এর। সেটা হতে পারে ভর্তির সময়, হতে পারে ফরম পূরণ করার সময় অথবা অন্যান্য যেকোনো ক্ষেত্রে।

৩. ডেস্ক ম্যানেজমেন্টঃ একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মূলত হর হামেশাই বিভিন্ন কারণ কে বা মাধ্যমকে কেন্দ্র করে নানা প্রকার অনুষ্ঠান সম্মেলন সভা ও অন্যান্য কার্যক্রমের আয়োজন হয়ে থাকে। মূলত সেই সকল অনুষ্ঠানের সকল দায়-দায়িত্ব এবং কাজকর্ম করার সিদ্ধান্ত এবং সেগুলোর সঠিকভাবে সম্পাদন করার প্রায় দায়িত্বই গ্রহণ করতে হয় একজন হাই স্কুলের অফিস সহায়ক এর।

অতএব এটা দাঁড়ালো ডেস্ক ম্যানেজমেন্ট এর কাজ সমূহও হাই স্কুল অফিস সহায়কের কাজের অন্তর্ভুক্ত।

৪. অফিস ব্যবস্থাপনাঃ হাই স্কুলের অফিস সহায়ক এর কাজ গুলোর মধ্যে অন্যতম প্রধান কাজ হচ্ছে অফিস ব্যবস্থাপনার সকল দায়-দায়িত্ব পালন করা। মূলত দৈনিক অফিস কাজের জন্য সরঞ্জাম, এবং সকল প্রকার কার্য সম্পাদনের জন্য পরিচালনার দায়িত্ব পালন এবং বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে সাহায্য করাই হচ্ছে অফিস সহায়ক এর কাজ।

৫. প্রশাসনিক সাহায্যঃ একজন হাই স্কুলের অফিস সহায়ক এর কাজ বা দায়িত্বের অন্তর্ভুক্ত একটি অংশ হচ্ছে প্রশাসনিক সাহায্য সহযোগিতা করা। এটা মূলত অফিসের প্রধান স্টাফের সাথে প্রশাসনিক কাজের সাহায্যের কথা ইঙ্গিত করে। যেমন মনে করুন ডাটা এন্ট্রি, নিয়ন্ত্রণ ও অন্যান্য প্রশাসনিক কার্যক্রম।

৬. সময় ম্যানেজমেন্টঃ অফিসের সময় পরিচালনা করতে এবং কখন কোন ক্লাস সংঘটিত হবে এবং ঠিক কোন সময় কোন কার্যক্রম গুলো সম্পাদন করতে হবে সেগুলোর সময় ম্যানেজমেন্ট এর দায়িত্ব পালন করতে হয় একজন হাই স্কুলের অফিস সহায়কের।

এছাড়াও বিভিন্ন ইমেইল সংক্রান্ত কাজ, সই স্বাক্ষর, ডকুমেন্ট স্টাইলিং ও ফরমেটিং করা পাশাপাশি যাবতীয় লেটার লেখার দায়িত্ব বা কার্যাবলীর সম্পাদন করতে হয় একজন হাই স্কুলের অফিস সহায়কের।

পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক অফিস সহায়ক এর কাজ কি

ঠিক একইভাবে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক অফিস সহায়ক এর কাজ হল অফিসের যাবতীয় কার্যক্রমে সাহায্য করা এবং অফিস খোলার নির্দিষ্ট সময়ের ১৫ মিনিট আগে অফসে গিয়ে অফিসের সকল ফাইল সাজিয়ে গুছিয়ে রাখা। পাশাপাশি অফিসের সকল আসবাবপত্র পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা এবং অফিসে যে সকল স্টাফ রয়েছে তাদের নাস্তা পানির ব্যবস্থা করা।

মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অফিস সহায়ক এর কাজ কিঃ ইতিমধ্যে আমরা হাই স্কুলের অফিস সহায়ক এর কাজ এবং পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক এর অফিস সহায়ক এর কাজ সম্পর্কে জেনেছি। এ পর্যায়ে তুলে ধরছি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অফিস সহায়ক এর কাজ কি কি সেগুলো।

যথাঃ –

একজন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অফিস সহায়ক এর কাজ হল অফিসের আসবাবপত্র পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা এবং সকল প্রকার ডকুমেন্ট সুন্দরভাবে সাজিয়ে গুছিয়ে রাখা। কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের খাবার পানির ব্যবস্থা করা অফিসের যাবতীয় কাজে সাহায্য করা।

যেমন অফিসের ফাইল বা বিভিন্ন ধরনের কাগজপত্র এক স্থান থেকে অন্য স্থানে নিয়ে যাওয়া, প্রিন্টারের দোকানে গিয়ে কোন কিছু প্রিন্ট করে নিয়ে আসা বা শিক্ষকদের কোন ফরমাস খাটা প্রভৃতি। এছাড়াও অফিসের প্রয়োজনে বিভিন্ন ব্যাংকে চেক জমা করা বা টাকা তোলার দায়িত্বও পালন করতে হয় মাধ্যমিক অফিস সহায়ক দের।

About admin

Check Also

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর উপবৃত্তি পাওয়া যায় কিভাবে

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর উপবৃত্তি পাওয়া যায় কিভাবে

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর উপবৃত্তি পাওয়া যায় কিভাবে? শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট উপবৃত্তি পাওয়ার জন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *