পবিত্র কোরআন নাজিলের পাহাড়, যেখানে ধ্যানমগ্ন থাকতেন বিশ্বনবী

মক্কা শরিফ থেকে ছয় কিলোমিটার উত্তর-পূর্ব দিকে অবস্থিত একটি পাহাড়ের নাম জাবালে নূর। এই পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত একটি গুহাকে বলা হয়- ‘গারে হেরা’ বা ‘হেরা গুহা’। নবুওয়ত লাভের পূর্বে এ গুহায় প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ওহি লাভে ধ্যানমগ্ন থাকতেন। এখানেই সর্বপ্রথম অহি নাজিল হয়েছিলো।

জাবালে নূর কিংবা হেরা গুহা সম্পর্কে জানতে মানুষের বেশ আগ্রহ। এই হেরা গুহায় যেখানে বিশ্বনবী ধ্যানমগ্ন থাকতেন। সেখানে নিচ থেকে দেখলে মনে হয় পাহাড়টি খুব বেশি উঁচু নয়। কিন্তু আদতে পাহাড়টি বেশ উঁচু। সেখানে উঠা একদমই সহজ ছিল না তখন। ছিল না উপরে ওঠার কোনো সহজ পথ।

বর্তমানে যেখানে ওঠতে শক্তিশালী ও সামর্থবান মানুষদের প্রায় এক ঘণ্টারও বেশি সময় লেগে যায়। প্রায় ১০০০ ফুট উচ্চতার ভয়ংকর পথ পাড়ি দিয়ে পাহাড়ের চূড়ায় ওঠতে বেশ কয়েকবার বিশ্রাম নিতে হয়।

সমতল ভূমি থেকে পাহাড়ের ওপরের দিকে প্রায় ২০০ থেকে ২৫০ ফুট পথ গাড়িতে যাওয়া যায়। সেখান থেকে ৮৯০ ফুট উচ্চতায় হেরা গুহা অবস্থিত। হেরা গুহায় যেতে আরও প্রায় ১০০ ফুট রাস্তা পাড়ি দিতে হয়।

কেননাপাহাড়ের চড়ূা থেকে বিপরীত দিকে একটু নিচে অবস্থিত হেরা গুহায় যাওয়া বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। হেরা গুহাটি পাহাড়ের সর্বোচ্চ চুড়ায় না হলেও সেখানে যেতে হলে পাহাড়ের সর্বোচ্চ চূড়ায় ওঠতে হয়। সেখানে উঠা ছাড়া হেরা গুহায় যাওয়ার কোনো বিকল্প পথ নেই।

প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ (সা:) যে গুহায় ধ্যান করেছিলেন, সেটি আকারে অনেক ছোট। যেখানে একজন সুঠামদেহী মানুষ ঠিকভাবে নড়াচড়া করতেই কষ্টকর হয়ে যায়। অনেকেই প্রিয় নবীর স্মৃতিবিজড়িত এ পাহাড় দেখতে যায় এবং হেরা গুহায় নামাজ আদায় করে। সেখানে একজনের বেশি লোক নামাজ আদায় করা কষ্টকর হয়ে যায়।

নামাজ আদায় করতে এসে মসজিদে নববীর আঙিনায় সন্তান প্রসব

এবার ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের দ্বিতীয় পবিত্র স্থান মদিনার মসজিদে নববীর আঙিনায় সন্তান প্রসব করেছেন এক নারী। গত বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটেছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে সৌদি গেজেট। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অন্যান্য নারীদের সঙ্গে ওই নারীও নামাজ আদায় করতে মসজিদে নববীতে এসেছিলেন। নামাজ শেষে মসজিদ ত্যাগ করার সময় হঠাৎ প্রসব বেদনা শুরু হয় তাঁর।

এ সময় উপস্থিত কয়েকজন নারী-পুরুষ দ্রুত সৌদি রেড ক্রিসেন্টের মসজিদে নববী শাখার (এসআরসিএ) স্বেচ্ছাসেবীদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা ঘটনাস্থলে এসে ওই নারীর চিকিৎসার দায়িত্ব নেন।

এদিকে সৌদি রেড ক্রিসেন্ট মদিনা শাখার মহাপরিচালক ডা. আহমেদ বিন আলি আল-জাহরানি সৌদি গেজেটকে বলেন, মসজিদে নববীর আশেপাশে রেড ক্রিসেন্টের কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্স সবসময় রাখা থাকে। সেসব অ্যাম্বুলেন্সে চিকিৎসক ও জরুরি চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থাও রয়েছে।

এ সময় তাকে একটি অ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে যাওয়ায় ও অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে ওই নারী নিরাপদে সন্তান প্রসব করেছেন। মা ও শিশু উভয়েই সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন ডা. আহমেদ বিন আলি আল-জাহরানি। বর্তমানে মদিনার বাব জিবরিল স্বাস্থ্যকেন্দ্রে রয়েছেন মা ও শিশু।

এদিকে সৌদির সাধারণ জনগণ ও আগত বিদেশি ওমরাযাত্রীদের যে কোনো প্রয়োজনে রেড ক্রিসেন্টের জরুরি সেবা পেতে হলে ৯৯৭ নম্বরে ফোন করার পরামর্শ দেন ডা. আল-জাহরানি। এ ছাড়া, আসাফনি ও তাওয়াক্কালানা অ্যাপ থেকে এসওএস পাঠানো হলেও জরুরি অ্যাম্বুলেন্স সঠিক স্থানে পৌঁছে যাবে বলেও নিশ্চিত করেছেন সৌদি রেড ক্রিসেন্ট মদিনা শাখার মহাপরিচালক।

About admin

আমার পোস্ট নিয়ে কোন প্রকার প্রশ্ন বা মতামত থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন অথরা মেইল করতে পারেন admin@sottotv.com এই ঠিকানায়।