আমাকে হত্যা করলেই গোল পাবে, সতীর্থদের বলেছিলেন মার্টিনেস

চলতি কাতার বিশ্বকাপের শুরুতেই দুই গোল হজম করে ঘুরে দাঁড়িয়েছে আর্জেন্টিনা। দারুণ পারফরম্যান্সে দলটি উঠেছে ফাইনালে। এই যাত্রায় সবচেয়ে বেশি অবদানের কথা বললেই শুরুতে অবশ্যই লিওনেল মেসির নামটাই আসে। এরপর? সন্দেহ ছাড়াই বলা যায় এমিলিয়ানো মার্টিনেস।
আর্জেন্টিনার গোলপোস্টে দেয়াল হয়ে থাকা এই গোলরক্ষকের অসাধারণ সব শট ঠেকানো দেখে সবার অবাকই হওয়ার কথা।

বিশেষ করে কোয়ার্টার ফাইনালে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে কি দারুণ ফর্ম দেখিয়েছেন তিনি। টাইব্রেকারে ভার্জিল ফন ডাইক ও জোড়া গোল করা স্টিভেন ভার্গাসের শট ঠেকিয়ে নায়ক বনে গেছেন। জিতে দলকে তুলেছেন সেমিফাইনালে। শুধু যে গোলপোস্টেই দেয়াল হয়ে থাকা তা নয়, বরং দলের বাকি ফুটবলারদের প্রেরণা দেওয়ার ক্ষেত্রেও এমি মার্তিনেসের বিকল্প নেই।

ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে সেটিই করেছেন তিনি। প্রধমার্ধে দুই গোলে এগিয়ে থাকা আলবেসিলেস্তে ফুটবলারদের বিরতি শেষ করে মাঠে নামার আগে টানেলের মধ্যে এমন কথা বলেছিলেন, যে কথায় অনুপ্রেরণা পেয়েছেন সবাই।

ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে দেখা যায় টানেলে থাকা ফুটবলারদের মার্তিনেস বলছেন, ‘সবাই শুনো, (তাদের) গোলসংখ্যা এখনও শূন্য। তারা (ক্রোয়েশিয়া) গোল করতে হলে আমাকে হত্যা করতে হবে। আমরা তাদের কিছুই করতে দেব না, কোনো সুযোগও না।’

এদিকে এমিলিয়নো মার্টিনেসের এই কথার জবাব পাওয়া যায় দ্বিতীয়ার্ধেই। একটি গোলও খেতে হয়নি আর্জেন্টিনাকে। বরং আরও হুলিয়ান আলভারেস দলের স্কোরলাইন ৩-০ করেন। আর এই ব্যবধানে জিতেই ফাইনালে কোয়ালিফাই করেছে আলবেসিলেস্তারা। আগামী রবিবার ১৮ ডিসেম্বর শিরোপাজয়ের লড়াইয়ে ফ্রান্সকে মোকাবেলা করবে আর্জেন্টিনা।

About admin

আমার পোস্ট নিয়ে কোন প্রকার প্রশ্ন বা মতামত থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন অথরা মেইল করতে পারেন admin@sottotv.com এই ঠিকানায়।