ব্রাজিলের তৃতীয় খেলোয়াড় হিসেবে নেইমারের রেকর্ড

চলতি কাতার বিশ্বকাপের দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে পেনাল্টি থেকে গোল করেছেন ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার জুনিয়র। আর এরই সাথে করেছেন দারুণ এক কীর্তি। ব্রাজিলের তৃতীয় খেলোয়াড় হিসেবে বিশ্বকাপের তিন ভিন্ন আসরে গোল করার অনন‌্য কীর্তি গড়েছেন নেইমার।

এর আগে এই রেকর্ড গড়েছিলেন রোনালদো ও পেলে। নেইমার ২০১৪ এবং ২০১৮ বিশ্বকাপে দলের হয়ে গোল করেছিলেন। ২০১০ সালে কোনো গোল পাননি। ২০১৪ সালে চারটি ও ২০১৮ সালে দুই গোল করেছিলেন।

চলতি বিশ্বকাপের প্রথম গোল পেয়েছেন আজ। পাশাপাশি আজকের গোল দিয়ে কিংবদন্তি পেলের খুব কাছাকাছি পৌঁছে গেছেন নেইমার। ব্রাজিলের জার্সিতে পেলে ৭৭ গোল করেছিলেন। নেইমার আজ পেয়েছেন ৭৬তম গোল।

রোনালদোর পা ছুঁয়ে আর্শীবাদ নিলেন রিচার্লিসন

গতকাল রাতে দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে দুর্দান্ত ফুটবল দেখিয়েছে ব্রাজিল। ম্যাচের ১২ মিনিটে দুই গোলের লিড নেয় সেলেসাওরা। প্রথমার্ধে লিড হয় ৪-০ গোলের। প্রথমার্ধে ও দ্বিতীয়ার্ধে বেশ কিছু গোল করার সুযোগ হারিয়ে ৪-১ গোলের জয়ে মাঠ ছাড়ে ফেবারিট তকমা নিয়ে বিশ্বকাপে আসা দলটি। সেলেসাওদের হয়ে গোল করেছেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র। বিশ্বকাপে এটি তার প্রথম গোল। প্রথম গোলের স্বাদ পেয়েছেন লুকাস পাকুয়েতাও।

এর মধ্যে নেইমার ও রিচার্লিসনও গোল পেয়েছেন। মাঠে তারা ‘জোগো বোনিত’ বা সুন্দর ফুটবলের প্রদর্শনী দেখিয়েছে। চারটি গোল করেই ব্রাজিলের ফুটবলাররা দেখিয়েছে সাম্বা নৃত্য। তবে দলের পক্ষে তৃতীয় গোলটি করে ব্রাজিলের নাম্বার নাইন রিচার্লিসন দৌড়ে ডাগ আউটে চলে যান। সেখানে ‘পিজন ড্যান্স’ বা কবুতর নাচ দেখান তিনি। নাচটিকে ‘ঘুঘু ড্যান্স’ বলা যায়। কারণ রিচার্লিকে তার ভক্তরা ‘ঘুঘু পাখি রিচার্লি’ বলে ডাকেন।

ওই নাচে তারা ব্রাজিলের কোচ তিতেকেও সামিল করেন। এরপর ফিফা বিশ্বকাপের পডকাস্টে ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি এবং দেশটির ইতিহাস সেরা নাম্বার নাইন রোনালদো নাজারিও’র সঙ্গে সাক্ষাৎকারের টেবিলে বসেন ব্রাজিলের বর্তমান নাম্বার নাইন। ওই সাক্ষাৎকারে দ্য ফেনোমেননকে কবুতর নাচ শেখান রিচার্লি। দাঁড়িয়ে কোমরে দুই হাত বেঁধে মাথা ঝুঁকিয়ে এবং মাথা নাড়িয়ে দেওয়া তাদের নাচ বেশ সাড়া ফেলেছে সামাজিক মাধ্যমে।

এদিকে সাক্ষাৎকারের শেষ দিকে রিচার্লিকে বিশ্বকাপ জয়ী রোনালদো বলেন, ‘তুমি কি আমাকে কবুতর নাচ শেখাবে? আমি সত্যিই শিখতে চাই।’ এরপর দু’জন দাঁড়িয়ে ওই নাচ অনুশীলন করেন। রোনালদোকে জড়িয়ে ধরেন রিচার্লিসন। তার পা ছুঁয়ে আর্শীবাদ নেন। সাক্ষাৎকারে আসরে তিন গোল করা রিচার্লি জানান যে, বিশ্বকাপে গোলের রেকর্ড আরও এগিয়ে নিতে চান তিনি। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষেও গোল করতে চান।

মেসিদের নিয়ে ভাবছেন না রিচার্লিসন

এবার নেইমারকে ফিরে পেয়ে উজ্জীবিত ব্রাজিল শেষ ষোলোতে দক্ষিণ কোরিয়াকে উড়িয়ে দিয়েছে ৪-১ গোলে। কোয়ার্টার ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ ক্রোয়েশিয়া। ক্রোয়েশিয়ার বাধা পেরিয়ে শেষ চারে উঠতে পারলে ব্রাজিলের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ নেদারল্যান্ডস বা আর্জেন্টিনা। শেষ পর্যন্ত যদি আর্জেন্টিনাকেই সেমিফাইনালে প্রতিপক্ষ হিসেবে পায় ব্রাজিল, সেই ম্যাচ নিয়ে কি বিশেষ কোনো পরিকল্পনা আছে দক্ষিণ রিচার্লিসনের?

গতকাল রাতে দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ শেষে মিক্সড জোনে সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়েছে ব্রাজিলের স্ট্রাইকারকে। প্রশ্নটির উত্তরে তিনি আপাতত আর্জেন্টিনাকে নিয়ে কিছু ভাবছেন না বলেই জানিয়েছেন। রিচার্লিসন বলেন, ‘প্রথমে আমরা ক্রোয়েশিয়ার কথা ভাবছি। এখন আমাদের সামনে ক্রোয়েশিয়া, ভাবনায় শুধু তারাই। (সেমিফাইনাল) পরের ধাপে। আসলে এখন আপনাকে ক্রোয়েশিয়া নিয়েই ভাবতে হবে।’

এদিকে ভিনিসিয়ুস জুনিয়র, নেইমার, রিচার্লিসন, পাকেতা-চারজনের গোলের পরই ব্রাজিল উদ্‌যাপন করেছে সাম্বা নাচের তালে। রিচার্লিসন তো তাঁর গোলের পর নিজেদের মধ্যে নাচ শেষ করে চলে গেছেন ডাগআউটে। সেখানে তিনি কোচ তিতেকে নিয়ে নেচেছেন।

এদিকে তিতের সঙ্গে সেই নাচ নিয়ে মিক্সড জোনে রিচার্লিসন বলেছেন, ‘(উদ্‌যাপন) গুরুত্বপূর্ণ। তিনি খুশি। আমাদের দলটি যে একতাবদ্ধ, এমন উদ্‌যাপন তারই প্রমাণ।’ নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে রিচার্লিসনের কথা, ‘আমি খুব খুশি। আমাকে এভাবেই খেলে যেতে হবে। গোল করতে হবে।’

আগামী শুক্রবার ক্রোয়েশিয়া বিপক্ষে ব্রাজিলের ম্যাচটি এডুকেশন স্টেডিয়ামে। সেই ম্যাচে ব্রাজিল কেমন কী করবে-এই প্রশ্নের উত্তরে রিচার্লিসনের উত্তর, ‘সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে, দল লক্ষ্যে স্থির এবং আমরা সবাই মনোযোগী।’

বিশ্বকাপের ফাইনালে মেসির সাথে জার্সি বদল করতে চান পেদ্রি

চলতি কাতার বিশ্বকাপে সামনের ধাপে এগোনোর যে লাইনআপ, তাতে ফাইনালের আগে আর্জেন্টিনা-স্পেনের দেখা হওয়ার সুযোগ নেই। আর্জেন্টিনা নিজেদের গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হলেও ‘ই’ গ্রুপে জাপানের পেছনে থেকে রানার্সআপ হয়েছে স্পেন। যে কারণে দুই দলের সেমিফাইনালের পথ দুই দিকে চলে গেছে। দুই দলই যদি নকআউটের বাকি ম্যাচগুলো জিততে পারে, তাহলে ১৮ ডিসেম্বর দেখা হবে লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়ামে।

এখন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার পেদ্রিও সেই দিনটির অপেক্ষা করছেন। আর্জেন্টিনার সঙ্গে ফাইনাল খেলে ম্যাচ শেষে মেসির সঙ্গে জার্সি বদলানোর ইচ্ছা তাঁর, ‘শেষবেলার জন্য যে দৃশ্যটি আমি কল্পনা করছি, সেটি হচ্ছে লিওর সঙ্গে জার্সি বদলানো।’ কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার পথে স্পেনের প্রতিপক্ষ মরক্কো, ম্যাচটি আজ। মেসির আর্জেন্টিনা অবশ্য এরই মধ্যে শেষ আটে উঠে গেছে।

এদিকে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মেসির খেলায় মুগ্ধতার কথা জানিয়েছেন পেদ্রি, ‘আর্জেন্টিনায় খুব ভালো মানের খেলোয়াড় আছে। ওদের দলে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়টিও আছে। আমার জীবনে দেখা সেরা খেলোয়াড় লিও। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তাঁর গোলটিই ব্যবধান গড়ে দিয়েছে।’

এ সময় পেদ্রি বলেন, ‘মাঠে এবং মাঠের বাইরে তাঁর সঙ্গে দারুণ কিছু সময় কাটিয়েছি। অসাধারণ মানুষ। আশা করি তিনি একদিন ফিরে আসবেন। যখনই সুযোগ পাই ওনার খেলা দেখি। তাঁর খেলা দেখেই অনেক কিছু শিখি।’

মেসি মানেই আর্জেন্টিনা: আলভেজ

এবার দ্বিতীয় রাউন্ডে নিজেদের ম্যাচে জয় পেয়ে এখন কোয়ার্টার ফাইনালে লাতিন দুই পাওয়ার হাউস ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। ডাচদের বিরুদ্ধে আলবিসেলেস্তেরা এবং ক্রোয়াটদের বিরুদ্ধে সেলেসাওরা জয় পেলে সেমিফাইনালে দেখা হয়ে যাবে এই দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর। গোটা বিশ্বের কাছে অতিকাঙ্ক্ষিত এই সুপার ক্লাসিকোর সম্ভাবনা নিয়ে এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে জল্পনা-কল্পনা। বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে হয়েছে ব্রাজিলের বর্ষীয়ান রাইট ব্যাক দানি আলভেজকেও।

সাবেক বার্সা সতীর্থকে নিয়ে তিনি বলেছেন, এখন মেসিই আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপ প্রভাবিত করতে পারে এমন যে ক’জন এখন আছে, তাদের ছোট্ট তালিকাতেই থাকবেন মেসি। খবরটি প্রকাশিত করেছে মুন্ডো আলবিসেলেস্তে। দক্ষিণ কোরিয়াকে নিয়ে রাউন্ড অব সিক্সটিনের ম্যাচে যেন সাম্বা নৃত্যের ছন্দে ছেলেখেলাই করেছে সেলেসাওরা। এই ব্রাজিলকে আটকাবে কে, তা নিয়ে আলোচনার মধ্যে স্বাভাবিকভাবেই চলে আসছে মেসির আর্জেন্টিনার নাম; যাদের সাথে সেমিফাইনালে ব্রাজিলের দেখা হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

সে জন্য অবশ্য শেষ আটের লড়াইয়ে নিজেদের ম্যাচে জয় চাই লাতিন দুই পরাশক্তির। এমন প্রেক্ষিতে দাঁড়িয়ে দানি আলভেজকে প্রশ্ন করা হয়েছিল মেসি ও আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ম্যাচের সম্ভাব্যতা নিয়ে। বার্সা কিংবদন্তি আলভেজ এ প্রসঙ্গে বলেন, এই মুহূর্তে মেসিই আর্জেন্টিনা। নিজ দেশের সকল সম্ভাবনা বহন করছে মেসির পা। আমি বিশ্বাস করি, মেসি এখন অবিশ্বাস্য সময় কাটাচ্ছে। চলতি আসরে যেসব খেলোয়াড় আলাদা মনোযোগ দাবি করে, মেসি তাদের অন্যতম।

তবে এখনই সেমিফাইনাল নিয়ে না ভেবে কোয়ার্টার ফাইনালের দিকেই সকল মনোযোগ দেয়া উচিত ব্রাজিলের; এমন মন্তব্য করে দানি আলভেজ বলেন, প্রতিপক্ষ কে হবে তা বেছে নেয়া আমাদের কাজ নয়। যাদের বিপক্ষেই খেলতে হোক না কেন, মাঠে নেমে নিজেদের শতভাগ উজাড় করে দিয়ে সামনে এগিয়ে বিশ্বকাপ জয় করাটাই আমাদের কাজ। আমরা কোয়ার্টার ফাইনালে এসেছি বলেই সেমিফাইনাল নিয়ে এখনই ভাববার কিছু নেই। আমাদের প্রতিপক্ষ ক্রোয়েশিয়া, তাদের প্রতি সম্মানের জায়গা থেকেই বলছি, আমাদের সকল মনোযোগ দিতে হবে সামনের ম্যাচে। মানসম্মত বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় আছে তাদের। তারা আমাদের ১১০ শতাংশ মনোযোগ দাবি করে।

About admin

Check Also

অবশেষে দক্ষিণ আফ্রিকা যাচ্ছেন সাকিব

জল্পনা-কল্পনার অবসন ঘটিয়ে অবশেষে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান। তার যাওয়ার বেপারে সিদ্ধান্ত …