বিশ্বকাপ জিতে ট্রফি নিয়েই খাচ্ছেন-ঘুমাচ্ছেন মেসি

৩৬ বছর পর বিশ্বকাপ জিতেছে আর্জেন্টিনা। অধরা স্বপ্ন ছুঁয়েছেন লিওনেল মেসি। বিশ্বকাপ জিতে ট্রফিতে তার চুমুর দৃশ্যটাই প্রমাণ করে, কতোটা অপেক্ষায় ছিলেন এই ট্রফিটার।

তাই ট্রফি জেতার পর কোনোমতেই সেটা হাতছাড়া করছেন না আর্জেন্টাইন এ মহাতারকা। এমনকি ট্রফি নিয়ে বাড়ি ফেরার পরেও সেটা নিয়েই খাচ্ছেন-ঘুমাচ্ছেন সাত বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা।

বিশ্বকাপ জয়ের উন্মাদনায় এখনো ভাসছে পুরো আর্জেন্টিনা। মঙ্গলবার সকালে ট্রফি নিয়ে মেসিদের নিজ দেশে গমন যেন সেই উন্মাদনায় দিয়েছে নতুন মাত্রা। বিশ্বজয়ী তারকাদের ব্যাপক সমাহারে এদিন দেশে বরণ করে নিয়েছে জনগণ। আর নিবেই বা না কেন! ট্রফি হাতে মেসির ওই আইকনিক হাসি দেখার জন্যই তো কত ভক্ত-অনুরাগীরা কাটিয়েছে বিনিদ্র রজনী। মেসি নিজেও কি এই ট্রফির জন্য কম চেষ্টা করেছেন!

নিজের ফুটবল ক্যারিয়ারে প্রায় সবকিছুই জিতে ফেলেছিলেন মেসি। প্রাপ্তির খাতায় শুধু বাকি ছিল বিশ্বকাপটাই। এবার সেটাও যোগ করে ফেললেন কিংবন্তি এ ফুটবলার। ৩৫ বছর বয়সে যে দক্ষতা দেখিয়ে বিশ্বকাপ জেতালেন দলকে, সেটা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। তবে বিশ্বকাপ জিতে বাড়ি ফেরার পর যেন বাচ্চা বনে গেলেন লিওনেল আন্দ্রেস মেসি।

যারা ফুটবলকে ভালোবাসে, তারা মেসিকে ভালোবাসে: ব্রাজিল তারকা

অবশেষে বিশ্বকাপ নিয়ে দেশে পৌঁছেছেন মেসিরা। সারা বিশ্বজুড়ে এখনো চলছে মেসি-বন্দনা। মেসিকে অভিনন্দন জানাতে কার্পণ্য করেননি চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের খেলোয়াড়রাও। এবার মেসির বন্দনায় গা ভাসিয়েছেন ব্রাজিলের সুপারস্টার দানি আলভেস। তারকা এ ডিফেন্ডার আলভেস দীর্ঘসময় ধরে বার্সেলোনায় মেসির সতীর্থ ছিলেন। দুজনের বোঝাপড়াও দারুণ।

৩৯ বছর বয়সি এ তারকা ছিলেন এবারের ব্রাজিল দলেও। খেলেছেন একটি ম্যাচ। মেসিকে উদ্দেশ্য করে ইনস্টাগ্রামে দেওয়া পোস্টে আলভেস বলেন, ‘যারা ফুটবলকে ভালোবাসে, তারা তোমাকে ভালোবাসে। তোমাকে পুরো দুনিয়া ভালোবাসে। কারও কথায় কর্ণপাত করো না। পরিবারকে নিয়ে সময়টাকে উপভোগ করো। তোমাকে অভিনন্দন জানাই।’

এ সময় আলভেস আরও লেখেন, ‘ব্রাজিলিয়ান ও দক্ষিণ আমেরিকান হিসেবে আমি বুঝি, এটি শুধু একটি ট্রফি নয়; এরচেয়ে বেশি কিছু। ফুটবল চিরস্থায়ী হোক। যারা খেলাটাকে ভালোবাসে তার দীর্ঘজীবী হোক।’